বাবা মেয়েকে করেছিলো স্যালুট সবাই দেখে হতবাক হয়েছিলো , এর পেছনে আসল সত্য জানলে আপনি অবাক হয়ে যাবেন

কথায় আছে মেহনতী মানুষ সব সময় আগে থাকে, যারা হার্ড ওয়াক করে তারা কোনদিনও কোন কিছুতে হার মানে না, হয়তো হার্ড ওয়ারক করার সময় তাদের অনেক কষ্ট হয় ,কিন্তু এর ফল একদিন ঠিকঠাক মিলে, আর জীবনে যখন এই হার্ডওয়ার্ক এর মাধ্যমে সফল হয় মানুষ, সেই সফলতায় সবচেয়ে বেশি আনন্দিত হয় সে নিজে এবং তার বাবা-মা, সব বাবা মা চায় তার ছেলে মেয়ে তার থেকে যেন অনেক বড় হয়

তাই তারা নিজেদের সাধ্যমত তাদের ছোট বেলা থেকে অনেক পড়াশোনা করায়, অনেক বড় করে তোলে স্বপ্ন দেখে, বাবা-মায়ের বুক গর্বে ভরে ওঠে যখন তার ছেলে মেয়ে সেই স্বপ্ন পূরণ করে আজ আপনাদের ঠিক এমনই একটি স্বপ্ন পূরণের কথা বলতে যাচ্ছি যেটা তেলেঙ্গানা শহরে ঘটেছে

তথ্য অনুযায়ী, একটি মেয়ে তার সফলতার এতটা উঁচুতে পৌঁছে গেছে যেটা জেনে, তার বাবার গর্বে, বুক ভরে গেছে, গত রবিবারে আয়োজিত হয়েছিল তেলেঙ্গানা রাষ্ট্রসঙ্ঘের এক রেলি যেখানে অনেক পুলিশ অফিসার কে নতুন চাকরি পাওয়ার সম্বর্ধনা দেয়া হয়, ঠিক সেখানে উপস্থিত ছিলেন , ডি এস পি, আর উমেশ মহেশ্বর শর্মা, এবং তার মেয়ে acp সিন্ধু শর্মা

সেই অনুষ্ঠানে যতক্ষণ না পর্যন্ত বাবা আর মেয়ে দেখা হয়নি ততক্ষণ ঠিক ছিল, কিন্তু যখন দেখা গেল বাবা dcp মহেশ্বর শর্মা স্যালুট করলো তার মেয়ে acp সিন্ধু শর্মা কে তখন.. সকলে তাদের করতালি দিয়ে অভ্যর্থনা করল। 30 বছর ধরে মহেশ্বর শর্মা এই পুলিশ অফিসার পদে নিযুক্ত আছেন, তার মেয়ে চার বছর ধরে এই পুলিশের পোস্টে আছে এর মধ্যে কোন দিনও তাদের দেখা হয়নি একই কাজে সূত্রে, তারা বাড়িতে বাবা মেয়ের মত থাকে কিন্তু তাদের কাজের জায়গায় তার মেয়ে তার থেকে অনেক উঁচু পোস্টে উঠে গেছে যেটা দেখে তার বুক গর্বে ভরে উঠেছে জানালেন তিনি।

বি: দ্র:- আমরা আপনাদেরকে জানাতে চাই এটি একটি অনুপ্রেরণা মূলক পোস্ট। যা সমাজের কল্যাণের জন্য মানুষদের উদ্বুদ্ধ করতে এই পোস্টটি 2019 এর ঘটনা তা নতুন করে আবার আমরা আপনাদের সামনে উপস্থাপন করি। প্রতিবেদনটি ভালো লাগলে লাইক করে শেয়ার করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button