চাকরি ছেড়ে দেওয়ার পর, পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়ে করোনা আক্রান্ত হয়েও ইউ.পি.এস.সি-তে তৃতীয় স্থান অর্জন করেছেন এই মেয়েটি

আমাদের বাবা-মা বা গুরুজনেরা আমাদের সবসময় ভাল শিক্ষা দিয়ে থাকে। তাদেরকে অনেক সময় একটি কথা বলতে শোনা যায় যে, যদি আমাদের উচ্চাশা থাকে এবং প্রতিজ্ঞা দৃঢ় হয় আমরা যে কোনো কাজ খুব সহজেই করতে পারব, যে কোনো বাঁধা আমরা খুব সহজে অতিক্রম করতে পারব এবং আমরা আমাদের জীবনে প্রায়শই প্রবাদটি বাস্তবায়িত হতে দেখেছি। আজ আমরা তেমনি একজনের কথা বলব আপনাদের।

আজকে আমরা আপনাকে বলব অঙ্কিতা জৈনের গল্প। যিনি সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা 2020-তে শীর্ষস্থানীয় হয়েছেন। যার বয়স এখন 28 বছর এবং তিনি দিল্লি টেকনোলজি ইউনিভার্সিটি থেকে পড়াশোনা শেষ করেছেন।

পড়াশোনা শেষ করার পর তিনি মুম্বাইয়ে অ্যাকাউন্ট সার্ভিস অফিসার হিসেবেও কাজ করেছেন এবং তার পাশাপাশি তিনি ইউ.পি.এস.সি-এর প্রস্তুতি নিতে শুরু করেন এবং কঠোর পরিশ্রম এবং অধ্যাবসায় সাথে তিনি সাফল্য অর্জন করেন।

2020 সালের জুলাই এ একজনকে বিয়ে করেছেন। তিনি এবং তার শ্বশুরবাড়ির লোকেরা মূলত আগ্রার গোয়ালিয়র রোডে অবস্থিত ডিফেন্স স্টেট এর বাসিন্দা। তার স্বামীর নাম অভিনব ত‍্যাগী। তিনি বর্তমানে মহারাষ্ট্র ক্যাডারের একজন আই.পি.এস অফিসার।

তিনি কিন্তু এই সফলতা একবারেই পাননি, এর আগেও তিনি তিনবার পরীক্ষা দিয়েছেন এবং চতুর্থবারের বার সফল হন। তারপরে তিনি পরীক্ষার প্রস্তুতির কারণে নিজের চাকরি ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। শুধু তাই নয়, যখন তিনি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়েছিলেন এবং পরীক্ষার মাত্র এক মাস বাকি ছিল তখন তিনি করোনায় আক্রান্ত হন এবং তার মধ্যেও তিনি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে থাকেন।

তিনি বলেছেন, এই সময় পরিবারের সদস্যরা তাকে অনেক সমর্থন করেছেন। 24 সেপ্টেম্বর 2021 এ ‘ইউনিয়ন পাবলিক সার্ভিস কমিশন 2020’-র সিভিল সার্ভিস পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করেছে যেখানে মোট 761 জন পরীক্ষার্থী পাস করেছে। এই 761 জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে অঙ্কিতা জৈন তৃতীয় স্থান পেয়েছেন। তার মতন মেয়েরা যুবসমাজের জন্য অনুপ্রেরণা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button