গ-র্ভবতী মহিলা পুলিশ অফিসারকে টেনে হি-চড়ে বুকে পেটে লা-থি মারলেন এই নেতা! ভিডিও মুহূর্তে ভাইরাল

যদি কোনো নেতার, বিশেষকরে ছোটো কোনো নেতার মাথায় নেতাগিরি-র ভূত চাপে তাহলে তা সাধারণ মানুষের জন্য হয়ে যায় অসুবিধার। এমনই এক ঘটনা ঘটেছে মহারাষ্ট্রের সতারাতে। এখানকার প্রাক্তন পঞ্চায়েত প্রধান এমন কাজ করলেন যা দেখে বা শুনে মানুষের অন্তরাত্মা পর্যন্ত কেঁপে উঠেছে।

মহারাষ্ট্রের সতারা জেলার প্রাক্তন পঞ্চায়েত প্রধান মহিলা ফরেস্ট রেঞ্জার কে লাঠি দিয়ে মেরেছেন। নিজের রাগ না কমলে লাথি মারতেও ছাড়েননি। মহিলা ফরেস্ট রেঞ্জার সেই অবস্থায় 3 মাসের প্রেগনেন্ট ছিলেন। এই কথা উক্ত ব্যক্তিও জানতেন।

এই ঘটনা গত বুধবার পলাসবড়েতে হয়েছে। প্রাক্তন পঞ্চায়েত প্রধান রামচন্দ্র জানকর নিজের স্ত্রীয়ের সাথে মিলে মহিলা ওয়ান রেঞ্জার সিন্ধু সনপ ও তার স্বামী সূর্যজি থোম্ব্রে কে মারেন। ভিডিও ভাইরাল হলে দেখা যায় 3 মাসের প্রেগনেন্ট সিন্ধু সনপ এর পেটে লাথি মারছেন রামচন্দ্র।

সূর্যজি থোম্ব্রে ও সিন্ধু সনপের মতে পেট্রোলিং করে ফেরার সময় রামচন্দ্রের স্ত্রী সূর্যজিকে থাপ্পড় মারেন। স্বামীকে বাঁচাতে গেলে রামচন্দ্র সিন্ধুকে অ্যাটাক করেন। এই পুরো অবস্থার ভিডিও সূর্যজি রেকর্ড করেন।

ভিডিও আপলোড হওয়ার পর পরই পুলিশ ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। সতারার SP অজয় কুমার বানসাল জানিয়েছেন মেডিকেল টেস্টে যদি ভ্রূণের কোনো ক্ষতি পাওয়া যায় তবে সেই অনুযায়ী কেস এগোবে। ASP অর্চনা দালাল জানিয়েছেন IPC -র ধারা 352, 353, 354 ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ঘটনার পর দোষীরা পালিয়ে যান। তাদের ধরার জন্য পুলিশের দুটো টিম গঠন করা হয়েছিল। সতারা পুলিশ প্রাক্তন পঞ্চায়েত প্রধান ও তার স্ত্রীকে ধরেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button