বাথরুমে নীল রঙের বালতি রাখলে কি হয় জানেন? মুহুর্তের মধ্যে বদলে যেতে পারে আপনার ভাগ্য।

ঘরের বিভিন্ন জায়গা যেমন রুম,রান্নাঘর, বাথরুম ইত্যাদি জায়গার জন্য আলাদা আলাদা বাস্তুশাস্ত্র থেকে থাকে। বাস্তুশাস্ত্রের সাহায্যে ঘরের বিভিন্ন জায়গার নেতিবাচক শক্তিকে দূর করে ইতিবাচক শক্তি বৃদ্ধি করা যেতে পারে।প্রায়শই ব্যক্তি তার ঘর এবং মন্দিরের বাস্তুর দিকে লক্ষ দিয়ে থাকে। আসল সত্যিটা হলো এই জায়গা গুলোর তুলনায় ঘরের বাথরুম এবং টয়লেটে অধিকতর নেতিবাচক শক্তি পাওয়া যায়।

এই জন্য এটি আবশ্যক যে আপনি আপনার ঘরের বাথরুম এবং টয়লেট এর বাস্তুশাস্ত্রর দিকে লক্ষ্য রাখুন। এবং নিচে দেওয়া বাথরুম এবং টয়লেট এর বাস্তুশাস্ত্রর সম্পর্কে কথা গুলি জেনে নিন।এরূপভাবে আপনার বাথরুমের বাস্তুশাস্ত্র দিকে লক্ষ্য রাখুন।

করুণ বাথরুমে হালকা রং:-বাস্তু শাস্ত্র অনুসারে ঘরের বাথরুমের রং সবসময় হালকা রঙের হওয়া উচিত।সাদা রঙ বাথরুমের জন্য সবচেয়ে সঠিক মনে হয় লাল হলুদ গোলাপি রং বাথরুমের জন্য সঠিক নয় এর জন্য আপনি সর্বদা আপনার বাথরুমে হালকা রং করান।

বন্ধ রাখুন আপনার বাথরুমের দরজা:-বাথরুমের ভিতরে সবচেয়ে বেশি নেতিবাচক শক্তি থেকে থাকে এর জন্য বাথরুমের দরজা কে কখনো খোলা উচিত না। দরজা খোলা রাখলে নেতিবাচক শক্তি সমস্ত ঘরে ছড়িয়ে পড়তে পারে এবং এর সাথেই আপনার বাথরুম এর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার দিকে আপনার লক্ষ্য রাখা উচিত।

রাখুন নীল রঙের বালতি:-প্রত্যেক বাথরুমের ভেতরে বালতি অবশ্যই থেকে থাকে বাস্তুশাস্ত্রে বাথরুমের ভেতর থেকে থাকা বালতির রং সম্বন্ধেও বলা হয়েছে এবং এর অনুসারে বাথরুমে সর্বদা নীল রঙের বালতি রাখা উচিত। শুধু এই নয় এই বালতিতে সর্বদা জল থাকা উচিত এবং জলটি একদম স্বচ্ছ হওয়া উচিত। এটা মানা হয় যে এই রঙের বালতি থাকার ফলে ঘরের ইতিবাচক শক্তি বৃদ্ধি পায়।

ঈশান কোণে টয়লেট:-ঘরের বাথরুম বানানোর সময় দিকের উপর লক্ষ্য রাখা উচিত এবং বাথরুম কে ঈশান কোণে বানানো উচিত। বাস্তু শাস্ত্র অনুসারে এই দিকে বাথরুম বানানোর ফলে ঘরে ধন সম্পত্তির ক্ষতি হয় না। এছাড়াও বাথরুমে রেখে থাকা আয়না বাথরুমের দরজার ঠিক সামনে থাকা উচিত নয়।

সঠিক দিকে লাগান ইলেকট্রনিক সামগ্রী:-বাথরুমের গিজার এবং ইত্যাদি সামগ্রী সঠিক দিকে লাগানো উচিত। এবং আপনার বাথরুমের গিজার এবং অন্যান্য ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী কে দক্ষিণ-পূর্ব দিকে লাগান এবং সাবান শ্যাম্পু এবং স্নান করার প্রভৃতি জিনিসপত্র কে দক্ষিণ এবং পশ্চিম দিকে রাখুন।

নলকূপ লিক যেন না হয়:-বাথরুমের নলকূপ কখনো লিক হওয়া উচিত না। কারণ নলকূপ লিক হওয়ার সম্পর্ক আপনার ধন-সম্পত্তির সাথে জড়িয়ে আছে। এর জন্য আপনার বাথরুমের নলকূপ যদি কখনো লিক হয়ে থাকে তাহলে শীঘ্রই তাকে সারিয়ে নিন এবং এর সাথে যদি বাথরুমের আয়না ভেঙে যায় তবে তাকে তৎক্ষণাৎ বাথরুম থেকে সরিয়ে দিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button