ডিম ও মুসুর ডাল দিয়ে বানিয়ে ফেলুন ঝট ফট বানিয়ে ফেলুন এক অসাধারণ রেসিপি।

ভোজন রসিক বাঙ্গালী নানা রকম খাবারের স্বাদ গ্রহণ করেই থাকে সবসময়, ভারতীয়রা চাইনিজ থেকে সাউথ ইন্ডিয়ান সব ধরনের খাবার খেতে পছন্দ করে। বাঙালি হিসেবে নতুন নতুন পদ আবিষ্কার করে ফেলে।

আগেকার মা ঠাকুমাদের বিভিন্ন রেসিপি এই প্রজন্মের সবাই চেটেপুটে খায় যা হয়তো এখনকার সময় অনেকই হারিয়ে গেছে, তবে কখনো-সখনো সেগুলো ফিরে পাওয়া যায় কারোর মাধ্যমে, তাই বাঙালির অপর নাম পেটুক বাঙ্গালীও বলা হয়। তাই বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতেও বিভিন্ন রান্নার রেসিপি আমাদের প্রায়ই চোখে পড়ে। এমনকি সেগুলো প্রচুর পরিমাণে লাইক ও শেয়ারও হয় কারণ প্রত্যেকের বাড়িতে রোজনামচার জীবনে রান্নার একঘেয়েমিতা কাটাতে বিভিন্ন রেসিপি সন্ধান তারা করেই থাকে এবং সেই সমস্ত রান্না করে বাড়ির লোকেদের মনে তৃপ্তি দেয়ার মধ্যে এক অপরূপ আনন্দও থাকে।

তেমনই একটি রান্না রেসিপি হল মসুর ডাল ডিমের মেলবন্ধনে এই রেসিপিটি, এমন কোনো জটিলতা নেই এতে। চটজলদি রান্না করে বাড়ির লোকের মন জয় করার জন্য একদম পার্ফেক্ট। এই রান্না করতে প্রথমেই যা লাগবে উপকরণ গুলো দেখে নেওয়া যাক, প্রথমেই লাগবে তিনটে ডিম, হলুদ গুঁড়ো, লঙ্কাগুঁড়ো, স্বাদমতো নুন, আদা রসুন বাটা, টমেটো বাটা, কাঁচা লঙ্কা বাটা, আলু, গরম মশলা গুঁড়ো, গোটা গরম মসলা, এলাচ, লবঙ্গ, দারচিনি, তেজপাতা, কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো, পেঁয়াজ কুচি, সাদা তেল, গোটা জিরে, ধনে গুঁড়ো।

এরপর আসা যাক কিভাবে রান্না করা হবে সেই পদ্ধতিটি, প্রথমেই দু ঘন্টা ভিজিয়ে রাখা মসুর ডাল কে মিক্সিতে পেস্ট করে নিতে হবে। পেস্ট টিতে যেন জল বেশি না থাকে, এরপর এতে তিনটে ডিম ফাটিয়ে দিয়ে দিতে হবে, স্বাদমতো নুন, হলুদ গুঁড়ো, কাঁচা লঙ্কা কুচি, এক চা চামচ আদা রসুন বাটা, হাফ চামচ গরম মসলার গুঁড়ো দিয়ে ভালো করে ফেটিয়ে দিতে হবে। একটি ননস্টিক কড়াই তে ১ টেবিল চামচ সাদা তেল দিয়ে গরম না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। তারপর কড়াই গরম হয়ে গেলে তার মধ্যেই মিশ্রণটি ঢেলে দিতে হবে, মিনিট পাঁচেক ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে কিছুক্ষণ। পরে ঢাকনা সরিয়ে ওই মিশ্রনটিকে অপর পিঠে উল্টে দিতে হবে মিনিট দুই তিনের জন্য ঢেকে রাখতে হবে।

তারপরে কড়াই থেকে এই মিশ্রণটি ঢেলে ঠান্ডা হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। অপরদিকে কড়াই তে ৪ টেবিল চামচ তেল গরম করতে দিতে হবে। তাতে ডুমো করে কেটে রাখা আলু এবং হলুদ দিয়ে ভেজে নিয়ে তুলে নিতে হবে। তারপরে ওর মধ্যে পেঁয়াজকুচি ওটা গরম মসলা তেজপাতা দিয়ে ভালো করে কষাতে হবে। আস্তে আস্তে অন্যান্য উপকরণ গুলির মধ্যে মিশিয়ে দিতে হবে ভালো করে কষিয়ে তেল ছাড়া ছাড়া হয়ে গেলে ওর মধ্যে আলু দিয়ে দিতে হবে। আবারো ভালো করে কষাতে হবে কিছুক্ষন, তারপর জল দিতে হবে।

তারপর মুসুর ডাল ডিমের মিশ্রনটিকে চৌকো চৌকো করে কাটতে হবে এবং সেগুলি তখন কড়াইতে দিয়ে দিতে হবে, দিয়ে কড়াইতে ঢাকনা কিছুক্ষণ চাপা দিয়ে রাখতে হবে, তারপর ঢাকনা খুলে তার মধ্যে নামাবার আগে হাফ চামচ গরম মসলা গুঁড়া দিয়ে নামিয়ে নিতে হবে এবং গরম গরম পরিবেশন করতে হবে। এই রেসিপিটি রুটি ভাতের সাথে খাওয়া যেতে পারে এবং অবশ্যই এই রেসিপিটি সবাইকে একবার হলেও রান্নাঘরে বানাতেই হবে

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button