এই আশ্চর্যজনক ফুল দিয়েই কয়েকটি টোটকা পালন করুন, আপনার ধন সম্পত্তি বৃদ্ধি পাবেই পাবে।

আপনারা সকলেই জানেন জীবনে গাছের গুরুত্ব। গাছ থেকে শুধুমাত্র অক্সিজেন নয়, ফল, ফুল, পাতা ইত্যাদি পাওয়া যায়। দৈনন্দিন জীবনে গাছ থেকে প্রাপ্ত সমস্ত জিনিস প্রয়োজন হয়। গাছের পাতা দিয়ে আয়ুর্বেদিক ঔষুধও তৈরি করা হয়। শুধুমাত্র তাই নয় গাছে ফোঁটা ফুল আপনাদের ধনলাভের ক্ষেত্রেও সাহায্য করে। সেইসব গাছগুলির মধ্যে একটি হলো নাগকেসরের ফুল। নাগকেসরের ফুল শুকিয়ে ঔষুধ এবং মশলা তৈরিতে ব্যবহার করা হয়।

নাগকেসরের ফুল:- এই ফুল শুধুমাত্র সৌন্দর্য বাড়ানোর ক্ষেত্রেই ব্যবহৃত হয়না, ধনলাভের ক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। নাগকেসরের ফুল তান্ত্রিক ক্রিয়ায় খুবই লাভজনক বলে মনে করা হয়। এই ফুল দিয়ে মাতা লক্ষ্মীর পূঁজা করলে মা প্রসন্ন হন। ঘরে নাগকেসরের ফুল দিয়ে পুজো করলে ধন সম্পত্তি বৃদ্ধি পাবে। আপনাদের এই ফুলের ব্যবহার সম্পর্কে কিছু তথ্য জানাবো। আসুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক, সেই তথ্যগুলি সম্পর্কে।

ধনলাভের টোটকা:- নাগকেসরের ফুল শুক্লপক্ষের রাতে বা কোনো শুভ দিনে ছোট একটি কৌটোর মধ্যে রেখে ঘরের যেখানে টাকা পয়সা রাখেন সেখানে রেখে দেবেন। এরফলে আপনার ঘরে কখনো ধন সম্পত্তির অভাব হবে না। হঠাৎ করেই অনেক ধন সম্পত্তির মালিক হয়ে যাবেন।

শুক্রবার নাগকেসরের ফুল শিবের পূজা করুন। পুজোর পর সেই ফুল স্বচ্ছ সাদা কাপড়ের মধ্যে রেখে দেবেন। পুজোর আগে শিব লিঙ্গটিকে কাঁচা দুধ, দই, ঘি এবং গঙ্গা জল দিয়ে ধুয়ে নেবেন। সেই ফুল নিয়ে দোকানের লকার বা অফিসের ক্যাশ বাক্সের মধ্যে রেখে দেবেন। এরকমতা করলে আপনার ধন বৃদ্ধি পাবে।

পূর্ণিমার দিন থেকে প্রতিদিন শিবলিঙ্গকে নাগকেসরের ফুল দিয়ে পুজো করুন এবং সেই ফুল ঘরের লকারে রেখে দেবেন। এতে আপনার অনেক ধনসম্পদ লাভ হবে।

সকলেই চায় কখনোই যেন ক্যাশ বাক্স ফাঁকা না থাকে, সব সময় যেন ধনে পরিপূর্ণ থাকে। এরজন্য আপনাদের নাগকেসরের ফুল, হলুদ, তামার টুকরো এবং চাল নিয়ে একসঙ্গে কাপড়ে বেঁধে লক্ষ্মীর মায়ের সামনে রেখে মন থেকে নিষ্ঠার সাথে দেবী লক্ষ্মীর উপাসনা করুন। তারপর এটি টাকা রাখার জায়গায় রেখে দেবেন। ফলে আপনার কখনো অর্থের অভাবে হবে না।

পিপল তিল, কালো মরিচ এবং নাগকেসরের ফুল সমান পরিমানে নিয়ে একসঙ্গে গুঁড়ো করে নিয়ে এতে ঘি মিশিয়ে ৭দিন খাবেন। এতে মহিলাদের সন্তান প্রাপ্তির সম্ভাবনা দেখা যায়। এই মিশ্রণটি গর্ভবতী মহিলার জন্যও খুবই উপকারী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button