উত্তরোত্তর কমবয়সীদের হার্ট অ্যাটাকে প্রবণতা বাড়ছে যে বিষয়গুলোর ওপর নজর রাখলে মৃত্যু ঝুঁকি এড়াতে পারবেন

এখন যেন মৃত্যুর কোনো বয়স নেই। যেকোনো সময় মানুষ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়তে পারে। জীবন বড্ড ক্ষণস্থায়ী। একটা বয়সের পর মৃত্যু হলে ততটা আঘাত পায় না মানুষ, কিন্তু যেভাবে হার্ট অ্যাটাকের ফলে কম বয়সী ছেলেমেয়েরা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে, তাতে করে সর্বস্তরের মানুষের চিন্তা আরো বেশি বেড়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি সিদ্ধার্থ শুক্লাকে হারিয়ে আরো একবার এই কথাটা প্রমাণিত হয়ে গেল যে, মৃত্যু যেকোনো সময় যেকোনো মানুষের দরজায় দাঁড়িয়ে থাকতে পারে।

পরিসংখ্যান জানাচ্ছে, ৩০ থেকে ৫০বছরের মধ্যে মানুষের হার্ট অ্যাটাকের অনুপাত গত ১০ বছরে দুই শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু কম বয়সী হার্ট অ্যাটাক হবার কারন কি? বিশেষজ্ঞদের মত অনুযায়ী, লাইফ স্টাইলে বিরাট বড় পরিবর্তন আসার ফলে হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা আরও বেশি বেড়ে যাচ্ছে। সময়ের সাথে সাথে মানুষের দৈনন্দিন কার্যকলাপে আমূল পরিবর্তন এসেছে যার ফলে মানুষের মৃত্যুর হার বেড়ে যাচ্ছে। দীর্ঘ লকডাউনে বাড়িতে বসে কাজ করার ফলে সময়ে স্নান-খাওয়া করতে পারছে না কেউ। একটি অনিয়মিত জীবনযাত্রার ফলে মানুষের অসুস্থতার হার অনেক বেশি বেড়ে যাচ্ছে।

আজকে চলুন জেনে নেওয়া যাক হার্ট এ্যাটাক হওয়ার আগে এমন কিছু লক্ষণ যা আপনাকে আগে থেকে সাবধান করে দিতে পারে। বমি ভাব,বদ হজম ,ঘাম,ক্লান্তি ,মাথা ব্যাথা,কাধে অথবা চোয়ালে ব্যথা,এছাড়াও বারবার বুকে ব্যথা অথবা চাপ অনুভব হলে সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।এবার চলুন জেনে নেওয়া যাক, কেন হার্ট অ্যাটাকের সমস্যা এত বেড়ে গেছে। মদ্যপান এবং ধূমপান ,অতিরিক্ত টেনশন, উচ্চ রক্তচাপ।ডায়াবেটিস ,অনিয়মিত খাদ্যাভাস,শরীরে কার্যকালাপের অভাব,এগুলো যদি আপনি এড়িয়ে চলতে পারেন তাহলে অবশ্যই আপনার হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা কমে যেতে পারে। প্রত্যেকদিন সুষম আহার এবং পর্যাপ্ত শরীরচর্চা করলে দীর্ঘদিন সুস্থভাবে বেঁচে থাকতে পারবেন আপনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button