17 বছর ধরে পুকুরের জলকে কাজে লাগিয়ে যে ভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদন করছেন এই কৃষক, দিতে হয়না ইলেকট্রিক বিল

কর্নাটকের দক্ষিণ কন্নড় জেলার 61 বছর বয়সী কৃষক সুরেশ নামের একজনের পিতা তাকে ইঞ্জিনিয়ার বানানোর স্বপ্ন দেখেছিলেন। সুরেশের জীবন-দর্শন ছিল ভিন্ন। প্রগতিশীল আদর্শের সুরেশ তার প্রাক বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনা শেষ করার পর কৃষিকাজ করার সিদ্ধান্ত নেন। ‘দ্য নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’-এর একটি প্রতিবেদন অনুসারে সুরেশ তার বাড়ির জন্য বিদ্যুৎ উৎপাদনের একটি টেকসই উপায় খুঁজে পেয়েছেন।

সুরেশ মাটির 60 ফুট খনন করে একটি পুকুরের জল থেকে শক্তি উৎপাদন করা শুরু করেছেন এবং সুরেশ বাতাসে টারবাইনে একটি পাইপ লাগিয়ে সেই সিস্টেম থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করেন। সুরেশ জানালেন যে তিনি ঘনঘন বিদ্যুৎ চলে যাওয়া এবং বিদ্যুৎ বিলের মূল্য নিয়ে সমস্যায় পড়েছিলেন। সুরেশ বলেন,” আমি বিদ্যুতের জন্য অন্যের উপর নির্ভর করতে চাইনি।

এটা শুধুমাত্র ঘরোয়া ব্যবহারের জন্য এবং যদি বৃষ্টি হয় আমরা জানুয়ারি মাস পর্যন্ত এটি ব্যবহার করতে পারি। আমি যখন ছোট ছিলাম তখন আমি প্রতিটি প্রাকৃতিক সম্পদ ব্যবহার করতাম এবং সেগুলিকে কাজে লাগিয়ে জীবনে কিভাবে উন্নতি করা যায় তাই চিন্তা করতাম।” আগে সুরেশ কর্ণাটক বিদ্যুৎ কেন্দ্রকে 1400 টাকা পর্যন্ত বিল দিয়েছেন কিন্তু এখন শুধুমাত্র নূন্যতম চার্জ প্রদান করেন।

অনেকে সুরেশের বিদ্যুৎকেন্দ্র দেখতে আসে এবং তার সাথে কথা বলে। সুরেশ স্কুলের বাচ্চাদের তার কাজ শেখার জন্য আমন্ত্রণ জানায়। বিদ্যুৎ উৎপাদন ছাড়াও সুরেশ ভূগর্ভস্থ জলের স্তর বাড়াতেও কাজ করেন। সুরেশ তার খামারে লঙ্কা,নারকেল প্রভৃতি সবজি চাষ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button