৪০ হাজার মাইনের সরকারী স্কুলের মাস্টারের বানান লিখতে দাত ভেঙে যাওয়ার অবস্থা, ভিডিও তুমুল ভাইরাল

আবারও সরকারি স্কুলের যে দুরাবস্থা, তার ছবি উঠে এল সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায়।স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা যেখানে উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়ার স্বপ্ন দেখেন, সেটা যে কতটা নড়বড়ে তাই চোখে আঙুল দিয়ে দেখালো এই ভিডিওটি। একটি বানানেই কুপোকাত স্কুলের প্রিন্সিপাল সহ সকল শিক্ষক।

ঘটনাটি ঘটেছে পাঞ্জাবের ঘাল্লুরের একটি সরকারি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে, যেখানে ছাত্র-ছাত্রীদের পঠন-পাঠনের কি অবস্থা তা পরিদর্শনে আসেন ঈশা কালিয়া। পরিদর্শন করতে গিয়ে সেই স্কুলের ভয়াবহ অবস্থার সম্মুখীন হন তিনি, একাধিক বিষয়ে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের প্রশ্ন করা হলে ঠিকমতো উত্তর দিতে পারেনি তারা।

কিন্তু স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের কথা না হয় বাদই দেওয়া যাক্, স্কুলের প্রিন্সিপালকে একটি সাধারন গ্রামার বানানটি বোর্ডে লেখার জন্য বলা হলে তিনি ভুল বানান লেখেন এবং বারবার ভুল বানানটিকেই তিনি ঠিক বলে দাবি করেন। পরে সেই বানানো আরও একজন শিক্ষককে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনিও সেই ভুল বানানটিই লেখেন।

তবে তা নিয়ে শিক্ষকরাও নিজেদের সাফাই দিতে ছাড়েননি। কেউ অজুহাতে বলেছেন আমি বিএসসি বিএড, আবার কেউ বলেছেন সরকারি বাংলা মিডিয়ামে শিক্ষকতা করেন তাই ইংরেজিতে তিনি দুর্বল। যে অজুহাতের কোন ভিত্তি থাকা উচিত নয়।তবে এ বিষয়ে পরিদর্শক ঈশা কালিয়া।

জানিয়েছেন, তিনি শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বিষয়ে কোনো অভিযোগ না করলেও যাতে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের সুষ্ঠুভাবে পঠন পাঠন হয়, সে বিষয়ে তিনি ব্যবস্থা নেবেন। ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে এই ভিডিওটি। সেখানে কমেন্টের বন্যা বয়ে গেছে, যেখানে তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানানো হয়েছে শিক্ষকদের।

তবে শেষপর্যন্ত সবাই চিন্তিত আগামী প্রজন্মকে নিয়ে। আমাদের সমাজ ঠিক কোন পথে চালিত হবে, যে উদ্দেশ্যে বাবা মায়েরা ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুলে পড়াতে পাঠান আদৌ তা সফল হবে তাই নিয়ে চিন্তিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button