১৫ টি কাজ, যা প্রতিটি মেয়ে গোপনে করে কিন্তু কখনই তা স্বীকার করে না

চলো মেয়েরা আজ আমরা স্বীকার করেই ফেলি, এমন অনেক দিন গেছে যখন আমরা স্নান করতে ভূলে গেছি, জামাকাপড় কাছতে ভূলে গেছি, ব্যবহারিত অ-ন্ত-র্বাস উল্টে নিয়ে পড়েছি, আবার খালি হাতে জ্যাম জেলি কৌঠো থেকে নিয়ে খেয়েছি! আমরা মেয়েরা নিজেদেরকে স্র-বোতকৃষ্ঠ ভেবে ছেলেদের নোং-রা, অগোছালো আরও কি কি না ভাবি, কিন্তু আসলে আমরাও ছেলেদের মতই আচরণ করি!তাই, এখানে একটা তালিকা দেওয়া হল যা মেয়েরা কখনো স্বীকার করে না।

আর ছেলেরা যদি এটা পড়ে তাহলে বুঝতে পারবে তাদের আশেপাশের মেয়েরাও অনেক অরুচিকর জিনিস করে যেগুলি তারা কোনদিনও বলে না।

১. স্টালকার সিনড্রোম:- প্রাক্তনকে উতক্ত করা। প্রাক্তনের নতুন বান্ধবীকে উতক্ত করা। প্রাক্তনের নতুন বান্ধবীর ভাইয়ের ছোট বেলার প্রিয় বন্ধুর বন্ধুর বোনকে উতক্ত করা। আপনি কি বুঝতে পারলেন আমি কি বলতে চাইছি?

২. গো-পনা-ঙ্গ সেভ করা এবং পরে অনুশোচনা করা:- গো-পনা-ঙ্গ সেভ করা অনেক সময়ই সর্বনাশা হয়। অল্পক্ষণের জন্য মসৃণতা পাওয়া গেলেও পরে যা চুলকানির অভিজ্ঞতা হয় তা নরকের মত। তখন আমাদের অনুশোচনা হয়। কিন্তু তাও বয়ফ্রেন্ডের সাথে যাওয়ার আগে আমরা আবার এই ঘটনা ঘটাই।

৩. ব্রা কখনো নোং-রা হয় না।এই কথাটি সব মেয়ে বিশ্বাস করে যেঃ ব্রা নোং-রা হয় না তাই অনেক দিন না কাঁচলেও চলে যায়। যদিও আমাদের প্রচুর ব্রা আছে তাও ঘুরিয়ে ফিরিয়ে আমরা একই ব্রা বার বার পড়ি।

৪. আমরা কাঁদার সময়ও নিজেদের সুন্দর দেখতে চাই।আমরা কাঁদার সময়ও নিজেদের বার বার আয়নাতে দেখার চেষ্ঠা করি আমাদের কি রকম দেখাচ্ছে বোঝার জন্য। হ্যাঁ! আমরা কাঁদার সময় নিজেদের সেলফিও তুলি। ভেজা চোখ, লাল নাকে আমাদের সে-ক্সি দেখায় না, তবুও।

৫. আমাদের পোশাক আমাদের ওয়াক্সিং করার সময়ের ওপর নির্ভর করে। আমরা সেভিং এবং ওয়াক্সিং খুবই অপছন্দ করি। এগুলি আমরা তখনই করি যখন এগুলি খুব প্রয়োজনীয় হয়ে ওঠে, না হলে আমরা পান্ট এবং গেঞ্জি পড়েই কাটিয়ে দিই। আমরা শীতকাল খুব ভালবাসি কারণ এইসময় সেভিং ও ওয়াক্সিং করার কনো দরকার হয় না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button