লকদাউনে কঠোর পরিশ্রম,বুদ্ধি মত্তা দিয়ে 1.10 কোটি টাকার ব্যাবসা দার করালেন এই 62 বছরের মহিলা

বিগত দুবছর ধরে করোনার যে দাপাদাপি, তাতে মানুষের জীবন ওষ্ঠাগত। সারা পৃথিবী স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে। সারি সারি মৃতদেহ , যাদের দাহ করতে সরকারও হইমসিম খেয়েছে। আমরা দেখেছি সেই নির্মম দৃশ্য আর নির্বাক হয়ে থেকেছি। করোনা মানুষের বহু ক্ষতি করে দিয়েছে ইতিমধ্যেই।

বিশেষত জীবন-জীবিকার ওপর প্রভাব তো পড়েছেই। এককথায় বলা যায় পেটে টান পড়েছে। অজস্র মানুষের চাকরি নেই, চারিদিকে হাহাকার, বেকারত্বের সংখ্যা দিনে দিনে বাড়ছে। চারিদিকে যখন ত্রাহি ত্রাহি রব সেই সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ার খবর এর মাধ্যমে উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য, যা শুনলে যথেষ্ট অবাক হতে হয়।

সেই তথ্য হল যে, করোনার মতো অতি মারি সময় এক ব্যবসায়ী ১.১০ কোটি টাকা আয় করেছেন শুধুমাত্র দুধ বিক্রি করে। ৬২ বছর বয়সী এই নারী অনুপ্রেরণা হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন গুজরাটের বনসকণ্ঠের বাসিন্দা নবলবেন দলসাং ভাই চৌধুরী গরু মহিষ পালনের প্রতি যথেষ্ঠ অনুরাগ ছিল এবং এই করোনাকালে তিনি দুধ বিক্রির ব্যবসা আরও বাড়িয়ে ছিলেন।

দুই হাজার কুড়ি সালে ১.১০ কোটি টাকার দুধ বিক্রি করেন। প্রতিমাসে ৩.৫০ লক্ষ টাকা মুনাফা করেছেন ২০১৯ সালে তিনি দুধ বিক্রি করে ৮৭. ৯৫ লক্ষ টাকা মুনাফা করেছিলেন। শুরুতে তিনি ব্যবসাতে কুড়ি থেকে ২৫ টি গরু মহিষ এসেছিলেন কিন্তু সেই সংখ্যাটি বাড়তে বাড়তে আজ ২১০ টি গরু মহিষের দাঁড়িয়েছে। প্রতিদিন সকালে প্রায় ৫০০ লিটার দুধ ও সন্ধ্যায় ৫০০ লিটার বিক্রি করেন।

তবে এখানেই শেষ নয় তিনি শুধুমাত্র নিজেই মুনাফা করেন তা নয় তিনি আরও ১৫ জনকে কর্মসংস্থানও দিয়েছেন। শুধুমাত্র চাকরি দিয়েছেন নিজের কাছে তা নস তাদের প্রতি মাসে তিনি বেতনও দেন। তাই নবলবেন কেও সম্মানিত করা হয়েছে দুবার লক্ষ্মী পুরস্কার এর মাধ্যমে এবং তিনবার সেরা পশুপালন পুরস্কারের দিক থেকে।

এহেন মানুষদের যে, আমরা খুব সহজেই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে চিনতে পারছি তার জন্য এই সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটকে ধন্যবাদ জানানো উচিত। মানুষের খবরা-খবর পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে মুহূর্তে পৌঁছে দিচ্ছে, এখন মানুষের খবরা খবর পৌঁছে যাওয়ার মাধ্যম টা খুব সহজ হয়ে দাঁড়িয়েছে এবং বিগত দুই বছর ধরে এই সোশ্যাল সাইট একটি শক্তপোক্ত প্লাটফর্ম হয়ে দাঁড়িয়েছে এটি স্বীকার করতেই হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button