যে কারণে সঞ্জয় দত্তের সাথে কাজ করেন না স্ত্রী-র থেকেও আলাদা থাকেন নানা পাটেকর

হিন্দি সিনেমার দিগ্গজ অভিনেতা নানা পাটেকর নিজের অভিনয় ও সংলাপের জন্য দর্শকদের মনে চিরস্থায়ী জায়গা করে নিয়েছেন। এহেন নানা পাটেকর গত 1 লা জানুয়ারি নিজের 71 তম জন্মদিন পালন করলেন। নানা পাটেকরের ছোটোবেলা আর্থিক অনটনের মধ্যে কেটেছে। তার আসল নাম বিশ্বনাথ পাটেকর।

নানা পাটেকর হিন্দি সিনেমা জগতকে বহু জনপ্রিয় ফিল্ম দিয়েছেন। তিনি না কেবল প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন, পাশাপাশি বেশকিছু অপ্রধান চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গেছে তাকে। প্রতিটি চরিত্রেই দর্শক তাকে পছন্দ করেছে। নানা পাটেকর আর তার স্ত্রী আলাদা থাকেন।

মাত্র 27 বছর বয়সে 1978 সালে নানা পাটেকর নীলকান্তি পাটেকরকে বিয়ে করেন। দুজনে আলাদা থাকলেও ডিভোর্স নেন নি। তাদের এক ছেলে আছে- মালহার পাটেকর। তাদের আলাদা থাকার কারণ এক্সট্রা মেরিটাল অ্যাফেয়ার।

আসলে কেরিয়ারের এক পর্যায়ে নানা অভিনেত্রী মনীষা কৈরালার সাথে সম্পর্কে ছিলেন। এই কথা জানার পর নীলকান্তি তৎক্ষণাৎ তাকে ছেড়ে চলে যান। 1978 সালে “গমন” ফিল্ম থেকে বলিউডে ডেবিউ করেন নানা পাটেকর। নিজের সফল কেরিয়ারে নানা পাটেকর “অঙ্কুশ”, “প্রহার”, “তিরঙ্গা”, “প্রতিঘাত” এর মতো ফিল্মে কাজ করেছেন।

বেশিরভাগ ফিল্মেই নানা পাটেকর সাহসী চরিত্রে অভিনয় করেছেন। নানা পাটেকর হিন্দি সহ মারাঠি ও অন্যান্য ভাষার সিনেমায় কাজ করেছেন। বেশকিছু ফিল্মে তিনি অসাধারণ মোনোলগ বলেছেন, যা অনেক বড় বড় অভিনেতারাও পারেন না। 43 বছরের কেরিয়ারে নানা পাটেকর তিনটি রাষ্ট্রীয় ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড ও চারটি ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন। এছাড়াও প্রধান চরিত্র, সহ-চরিত্র ও নেগেটিভ চরিত্রে অভিনয় করেও অনেক অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন তিনি।

মুম্বাই বোম ব্লাস্টে সঞ্জয় দত্তের নাম জড়িয়েছিল। এই ব্লাস্টে নানা তার ভাইকে হারান। এরপর থেকেই নানা পাটেকর সঞ্জয় দত্তের সাথে কাজ করবেন না বলে জানিয়ে দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button