মুচি থেকে ইন্ডিয়ান আইডল হওয়ার পর সানির জীবনে এসেছে এই বিদেশী বান্ধবী, বিস্তারিত জানলে আপনি তাজ্জব হয়ে যাবেন

টিভি রিয়েলিটি শো ‘ইন্ডিয়ান আইডেল 12’ এর বিজয়ী সানি হিন্দুস্তানিকে কেনা চেনেন। কিন্তু সানি বর্তমানে আর সিঙ্গেল নেই। সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের ভালবাসার কথা জানিয়েছেন সানি। সানি সোশ্যাল মিডিয়ায় দুটো ছবি শেয়ার করেছেন যেখানে তাকে তার বান্ধবীর সাথে দেখা যাচ্ছে। এর মধ্যে একটি ছবিতে তাকে তার বান্ধবীর কপালে চুমু খেতে দেখা যাচ্ছে, আর একটি ছবিতে তার সাথে তার বান্ধবীর সেলফি তুলতে দেখা যাচ্ছে। বাথিন্ডার বাসিন্দা সানি একসময় অর্থ সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিলেন, কিন্তু বর্তমানে তিনি অনেক টাকার মালিক।

সানির বান্ধবী ভারতীয় বংশোদ্ভূত কিন্তু তার জন্ম নেদারল্যান্ডে। তার বান্ধবীর সৌন্দর্যের সামনে অনেক অভিনেত্রী ব্যর্থ। সে একজন লেখিকা, এর সাথে তিনি একজন চিত্রকর। তিনি লেখালেখিতেই নিজের ক্যারিয়ার গড়ছেন, কিন্তু তার সাথে সে চিকিতসা গবেষণার ক্ষেত্রে পড়াশোনা করছেন। তাদের দুজনের মধ্যে দীর্ঘদিন সম্পর্ক রয়েছে এবং বহু বছরের সম্পর্ক লুকিয়ে রাখার পর এবার তা প্রকাশ করলেন সানি। সানি মূলত পাঞ্জাবের বাথিন্দার অমরপুর বস্তির বাসিন্দা। বাসস্ট্যান্ড ও রেলস্টেশনে গান গেয়ে ক্যারিয়ার শুরু করেন সানি।

ঘরের খরচ মেটাতে প্রতিদিন রাস্তায় বসে বুট পালিশ করতে হয়েছে, এমনকি ধান বিক্রি করতেন এবং রাস্তায় বেলুন বিক্রি করতেন। জানিয়ে রাখি, সানি যখন ছোট তখন তাঁর বাবার ছায়া তার মাথা থেকে উঠে যায়। এরপর তার মা ই তাকে ভিক্ষা করে পড়াশোনা শেখান। সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন যে, তিনি ‘ইন্ডিয়ান আইডল’ সম্পর্কে তেমন কিছু জানতেন না, তাকে তার এক বন্ধু বলেছিল যে ইন্ডিয়ান আইডল অডিশন মুম্বাইতে হচ্ছে। তাঁর বন্ধুটি তাকে অনেক অনুপ্রাণিত করেছে এবং বলে যে, “আমি ভালো গান করি এবং আমাকে একটি সুযোগ দেওয়া উচিত।”

সানি বলেন, “টাকা না থাকায় আমার মুম্বাই যাওয়ার মতন অবস্থা ছিল না, তখন ভাবলাম বড় কিছু করতে হলে নিজেকে সুযোগ দেওয়া উচিত। মায়ের সাথে অডিশন নিয়ে কথা বললে তিনি বলেন টাকা নেই, সেই নিয়ে আমাদের মধ্যে একটি বিতর্কও হয়েছিল। তিনি বলেন, “কিন্তু এটা আমি ঠিক করেছিলাম যে, আমি মুম্বাই যাবই এবং সেখানেই থাকবো”। তারপর সে তার কয়েকজন বন্ধুর কাছে 2000 টাকা ধার নিয়ে আসেন। এবং এই শোটিতে তিনি 25 লাখ টাকা জিতেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button