মাত্র 22 বছরে আইএএস অফিসার হয়ে মাফিয়াদের যে ভাবে দমন করেন জানলে অবাক হবেন

পৃথিবী থেকে ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি সম্পন্ন ব্যক্তিরা প্রতিটি পরিস্থিতি থেকে নিজেকে সরিয়ে নিতে সক্ষম হন এবং এ ধরনের লোকেরা পরে ইতিহাস রচনা করেন। আজকের গল্প এমন একজন ব্যক্তির, যিনি দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন কিন্তু তার চিন্তাভাবনা সবসময় সমৃদ্ধ ছিল। এই চিন্তাভাবনার ভিত্তিতে সে তার কাজকে বিশ্বজুড়ে একটি বিখ্যাত ব্র্যান্ডে পরিণত করেছিলেন।

1881 সালে ইতালির ফ্লোরেন্সে একটি সাধারণ পরিবারে জন্ম নেওয়া একটি ছেলের গল্প, যিনি 23 বছর বয়সে এই সমৃদ্ধ চিন্তার মালিক হয়ে সে নিজের ব্যবসা শুরু করার সিদ্ধান্ত নেন এবং 1904 সালে হার্নিশে চামড়ার কাজ শুরু করেছিলেন কিন্তু তিনি সফল হতে পারেননি। ফলে ঋণের বোঝা তার ওপর ভর করে।

চাকরি করা ছাড়া তার আর কোন নিজস্ব বিকল্প ছিলনা। তার কাজ বন্ধ করার পর ছেলেটি লন্ডনে চলে যায় এবং সেখানে একটি বিখ্যাত হোটেলে কুলি হিসেবে কাজ করা শুরু করে। সেই 23 বছর বয়সী ছেলেটি তার ঋণ শোধ করার কথা ভেবে লন্ডন গিয়েছিল কিন্তু সেখানে সাফল্যের পথ খুঁজে পেয়েছিল কারণ তিনি যে হোটেলে কাজ করতেন সেখানে মেরিলিন মনরো,উইনস্টন চার্চিলের মতন সেলিব্রিটিরা ঘনঘন আসতেন।

এ বিখ্যাত ব্যক্তিরা যখন হোটেলে আসতেন সেই ছেলেটি তাদের পোশাক খুব মনোযোগ দিয়ে দেখতো। তাদের পোশাক লক্ষ্য করে ছেলেটি এটিকে নিয়ে তার ব্যবসা নিয়ে করার কথা ভাবলো। ছেলেটি ভাবলো যে যদি সেই হোটেলে 10 বছর পর্যন্ত কাজ করে তবে সর্বাধিক সে একজন ওয়েটার হবে কিন্তু তার ব্যবসা তাকে 10 বছরে অনেক এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবে।

এই চিন্তার সাথে পা মিলিয়ে 1922 সালে ছেলেটি অন্য ব্যবসা শুরু করেন এবং ছেলেটি একটি ছোট দোকান থেকে তার ব্যবসা শুরু করে। প্রথমদিকে তিনি চামড়ার পণ্য, ওয়েজ ব্যাগ, স্যুটকেস প্রভৃতি বিক্রি করতেন। ছেলেটি ব্যবসার স্বীকৃতি পেয়ে যায় এবং সেটি ‘গুচি ব্র্যান্ড’ নামে পরিচিত ছিলো। যে ছেলেটি ব্যবসা শুরু করেছিল তার নাম গোসিও গুচি। গোসিওর ব্যবসা সম্প্রসারণে নিযুক্ত ছিলেন তখন তার সামনে একটি বড় সমস্যা দেখা দেয়।

1950 সালে ইতালির স্বৈরশাসক মুসোলিনি শাসন করেছিলেন। তার ফ্যাসিস্ট শাসনের অধীনে ইতালিতে বসবাস করা এবং চামড়া পাওয়া খুব কঠিন ছিল। তিনি তারপর চামড়ার পরিবর্তে সিল্ক ব্যবহার করা শুরু করেন। একটি ছোট জায়গায় একটি ছোট দোকান থেকে শুরু করে তার ব্যবসাকে গুচির মতন একটি বড় ব্র্যান্ডে পরিণত করে তিনি 1953 সালে পৃথিবীকে বিদায় জানান।

তার মৃ-ত্যুর পর তার ছেলেরা কঠোর পরিশ্রম করে ব্র্যান্ডের আধিপত্য হলিউডে নিয়ে যায়। গুচি এখন হলিউড সেলিব্রিটিদের মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বলা হয় যে, 90 দশকের গুচির জিন্সগুলি ছিলো সবচেয়ে দামি জিন্স এবং এর কারণে গুচির এই জিন্সগুলো বিশ্ব রেকর্ড করতে সফল হয়েছিল। এই রেকর্ডটি পরে লেভিস জিন্স দ্বারা ভেঙে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button