ভারতের বাজারে আসতে চলেছে এই বিশেষ ক্ষমতা সম্পন্ন ইলেকট্রিক স্কুটার

মুম্বাই ভিত্তিক বৈদ্যুতিক যানবাহন নির্মাতা রাফ্ট মোটরস নতুন ই-স্কুটার বাজারে আনতে চলেছে। তারা দাবি করছে যে এর দীর্ঘ ব্যাটারি পরিসর দেশীয় বাজারে বিদ্যমান ই-স্কুটার গুলির সাথে কঠিন প্রতিযোগিতা দেবে। এটি হবে ভারতের দীর্ঘতম চলমান বৈদ্যুতিক স্কুটার। রাফ্ট মোটরস এর মতে ই-স্কুটারটি একবার চার্জে 480 কিলোমিটার দৈর্ঘ্য দূরত্ব অতিক্রম করতে পারবে। রাফ্ট মোটরস তার ই-স্কুটার এর তিনটি মডেল বার করেছে।

বেস মডেল: পোর্টেবল 48v 65Ah লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি সহ এই ই-স্কুটারটির রেঞ্জ 156 কিমি হবে। এর এক্স-শোরুম মূল্য 1,18,500 টাকা।মধ্য পরিসীমা: 48v 135Ah পোর্টেবল ব্যাটারি দ্বারা চালিত হবে। এই স্কুটারটি একবার চার্জে 324 কিমি যেতে পারে এর এক্স-শোরুম মূল্য 1,91,976 টাকা।হাইএন্ড: 9.6 kwh ক্ষমতার ডুয়াল ব্যাটারি বিকল্প, যা একক চার্জে 480+ কিমি পর্যন্ত রেঞ্জ দিতে পারে। এর মূল্য 2,57,431 টাকা (এক্স শোরুম)।

রাফ্ট মোটরসের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর বলেন, “আমাদের লক্ষ্য ছিল এমন একটি ব্যাটারি রেঞ্জ সহ একটি ইলেকট্রিক টু হুইলার তৈরি করা যাতে রাইডারদের চার্জিং নিয়ে চিন্তা করতে না হয়। ইন্ডাস এনএক্স হলো এরকম একটি ডাবল ব্যাটারি ই-স্কুটার। ফুটবোর্ডের নিচে লাগানো এর 48v 135Ah ক্ষমতার ফিক্স ব্যাটারি একক চার্জে 325 কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করবে। এটি অবিলম্বে চার্জ করা প্রয়োজন হয় না।

একবার ব্যাটারী শেষ হয়ে গেলে রাইডারকে মিনিয়েচার সার্কিট ব্রেকার চালু করতে হবে এবং স্কুটার ইভি পোর্টেবল ব্যাটারিতে চলতে শুরু করবে এবং তারপরেও রাইডার কোন ঝামেলা ছাড়াই 156 কিলোমিটার আরো বেশি ভ্রমণ করতে পারবে। ইভি মেরামত বা জানানোর জন্য, আগ্রহীদের 30 দিনের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে এবং 99 টাকা ফি দিতে হবে।

প্রশিক্ষণের পরে, ব্যক্তি তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারে এবং নিজস্ব পরিষেবা কেন্দ্রও খুলতে পারে বা অন্য কোনো ইভি কোম্পানির শোরুমেও কাজ করতে পারে। বর্তমানে, রাফ্ট মোটরস ব্যাঙ্গালোর এবং কর্নাটকের বেল্লারী, ডিন্ডিগুল(তামিলনাড়ু), ভালসাদ(গুজরাট) এবং মধ্যপ্রদেশের রাইসেন এবং ছিন্দওয়ারা, উড়িষ্যার গঞ্জাম এবং কেন্দ্রপাড়া, পাঞ্জাবের সাংগ্রুরে ছোট ইউনিট স্থাপন করছে।

অ্যাম্বিয়েন্স দাবী করে যে, সমস্ত ইউনিট 10 নভেম্বর 2021 এর মধ্যে কাজ শুরু করবে। তারা 2022 এর মধ্যে 100 টি ইউনিট চালু করার লক্ষ্য রাখছে। তার এই কোম্পানি কোন বহিরাগত অর্থায়ন ছাড়াই কাজ করছে। এখন দেখার বিষয় হলো যে, রাফ্ট মোটরস তার দাবি পূরণ করতে সক্ষম কিনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button