বাতিল ফেলে দেওয়া প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে জল অপচয় আটকিয়ে, গাছে জল দেওয়ার এক অভিনব পদ্ধতি বার করে তাক লাগিয়ে দিলেন এই শিক্ষক

গাছ আমাদের জীবন। গাছকে রক্ষা করা আমাদের ধর্ম। বর্তমান সমাজে আমরা প্রতিনিয়ত অনুভব করতে পারছি, প্রকৃতি ভীষণভাবে রুষ্ট হয়েছে আমাদের ওপর। এখনো সময় আছে যদি আমরা প্রকৃতিকে তার আগের রূপে ফিরিয়ে আনতে পারি, তাহলে এই প্রাণী জগৎ অবশ্যম্ভাবী বিপদের হাত থেকে রক্ষা পেতে পারে। বিভিন্ন স্থানে বৃক্ষরোপন উৎসব পালিত করা হলেও সেই ভাবে বৃক্ষকে যত্ন নেওয়া হয় না।

ব্যক্তিগত সমস্যার কারণে হোক অথবা ব্যস্ততার জন্য, প্রতিদিন গাছে জল দেওয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব হয় না। তাই এবার ঝাড়খণ্ডের একজন শিক্ষক এগিয়ে এলেন তার অভিনব পদ্ধতি নিয়ে। তিনি এমন একটি উপায় বের করেছেন যার ফলে, একফোঁটা জল নষ্ট না করে আমরা প্রতিনিয়ত গাছের গোড়ায় জল দিতে পারি। এক্ষেত্রে আমাদের সময় অপচয় হবে না এবং একটি গাছ মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে যাবে।

ওই শিক্ষক হাজার হাজার নষ্ট জলের বোতল ব্যবহার করে ড্রিপ পদ্ধতিতে গাছের গোড়ায় জল দেওয়ার পদ্ধতি শিখিয়েছেন আমাদের সকলকে। অল্প অল্প করে প্রতিনিয়ত গাছের গোড়ায় জল দিলে সেই গাছ খুব তাড়াতাড়ি বৃদ্ধি পায়। ঝাড়খণ্ডের চাই বাসায় এই শিক্ষকের আদি বাড়ি। শিক্ষকের নাম তরুণ গগৈ।

সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, মানুষ বেশিরভাগ সময় জল খাওয়ার পর সেই বোতল ফেলে দেয়। কিন্তু প্লাস্টিকের বোতল সহজে নষ্ট হয়ে যায় না। যত্রতত্র প্লাস্টিকের বোতল ফেলে দেওয়ার ফলে পরিবেশ দূষণ অনেকাংশে বেড়ে যায়। এই সমস্ত বর্জ্য প্লাস্টিকের বোতল সংগ্রহ করে সেগুলি আমরা ব্যবহার করি গাছের গোড়ায় জল দেওয়ার ক্ষেত্রে।

পাশাপাশি তিনি আরো বলেছেন, প্লাস্টিকের বোতলগুলির নিচের অংশটা আমরা আলাদা করে নি। এরপর বোতলটি উল্টো করে মুখের অংশটা কিছুটা কেটে নি বোতলটি এমনভাবে জলপূর্ণ করে রাখি, যাতে সারাদিন ওই বোতল থেকে গাছের গোড়ায় জল পড়তে থাকে অল্প অল্প করে। একটি গাছের সঙ্গে বোতলগুলি এমন ভাবে বেঁধে দেওয়া হয়, যার ফলে বোতল থেকে জল সারাদিন গাছের গোড়ায় পড়ে এবং গাছের গোড়াকে শিক্ত করে রাখে।

শিক্ষকের মতে, একবার গাছের গোড়ায় যদি জল দেওয়া হয়, তাহলে সেটি কিছু সময়ের মধ্যে শোষিত হয়ে যায়। কিন্তু পরবর্তী সময়ে আমরা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে গাছের গোড়ায় জল দিতে পারি না। কিন্তু এই পদ্ধতি অবলম্বন করলে সারাদিন অল্প অল্প করে গাছের গোড়ায় জল পড়তে থাকে এবং গাছের গোড়া কখনো শুকিয়ে যায় না। প্রসঙ্গত, এই পদ্ধতির দ্বারা তিনি ইতিমধ্যেই ২ হাজার গাছ লাগিয়েছেন এবং ড্রিপ পদ্ধতিতে সেই গাছের গোড়ায় জল সরবরাহ করেছেন। তার এই পদ্ধতির দ্বারা ইতিমধ্যেই প্রচুর কাজ সঠিক পদ্ধতিতে বংশ বৃদ্ধি করতে পারছে।।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button