নীতা এই ভয়ঙ্কর শর্তে বিয়ে করেছিল মুকেশ আম্বানীকে, শর্ত জানলে অবাক হবেন জানুন

ভারতের সব থেকে ধনী পরিবারের বউ নীতা আম্বানী অনেক সময় চর্চা এসে থাকেন ।তাঁর শাড়ি,তার চা খাওয়া সব কিছু খুব দামী তাই সহজে সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করে থাকে ।কিন্তু আপনি কি জানেন ভারতের সব থেকে ধনী পরিবারের বউ নীতা আম্বানী আগে ৮০০ টাকায় একটি চাকুরি করতেন ।আর তাঁর দেখেও মজার কথা হল মুকেশ আর নীতা আম্বানীর বিয়ের কথা ।ধিরু ভাই আম্বানী যখন অতন্ত গরিব পরিবারের মেয়ে নীতা আম্বানীর বাড়িতে তাঁর বড় ছেলের বিয়ের পস্তাব নিয়ে যান তখন নীতা আম্বানী একটি শর্ত রাখে ।আজ আমরা একটি বিশেষ রিপোর্ট কি শর্ত তা নিয়ে কথা বলব ।

সবাই বলে জোড়ি উপরবালা ঠিক করে পাঠায় ।মুকেশ আর নীতা আম্বানীর বিয়ের ঘটনা অনেকটা এরকম ।ধিরুভাই আম্বানী একটি অনুষ্ঠানে নীতা আম্বানীকে দেখে তাকে বউমা বানানোর কথা ভাবে ।আসলে হয়েছিল কি নীতা বাবা তখন বিরলা গ্রুপে কাজ করত আর সেখানে একটিও অনুষ্ঠান হয় যেখানে নীতা ভরট নাট্যাম এর নাভ নেচে ছিলেন ।আর তাঁর নাচ দেখে ধিরু ভাই আম্বানী খুব পছন্দ হয় ।আর তাকে তাঁর বড় ছেলে মুকেশ আম্বানীর সাথে বিয়ে দেওয়ার কথা ভাবে ।ধিরু ভাই নীতার মোবাইল নাম্বার আর বাড়ির জায়গা সব বার করে আর তাদের সাথে দেখা করে ।

যখন ধিরুভাই আম্বানী নীতা আম্বানীর বাড়িতে ফোন করে ,তখন নীতা সেই ফোনটি তোলে আর তখন ধিরু ভাই আম্বানী বলে আমি ধিরু ভাই আম্বানী বলছে ,নীতা আম্বানী এটা বিশ্বাস করে না আর সে বলে দেয় আমি এলিজাবেথ বলছি ।কারন সে ভবেছে কেউ হয়ত মজা করছে ।আর তাঁর পর আবার যখন ধিরু ভাই ফোন করে তখন নীতা পিতা ফোন তোলে আর ধিরু ভাই গলা বুঝতে পারে ।

তারপর নিতা আম্বানীকে তাঁর বাবা অনেক বুঝিয়ে ধিরু ভাই আম্বানীর সাথে দেখা করার জন্যে রাজি করায় ।আর তারপর ধিরু ভাই এর সাথে দেখা হাওয়ার পর নীতা আম্বানীর সব কিছু তাঁর জিজ্ঞাসা করে আর বলে যে সে তাকে তাঁর বড় ছেলে পত্নী জন্যে এসব করছে ।আর তাকে মুকেশ সাথে বিয়ে দিতে চায় ।

ধীরু ভাই তাঁর প্রস্তাবের কথা তাঁর পরিবারকে জানায় ।তারপর যখন নীতা আম্বানি তাদের বাড়িতে যায় একদিন মুকেশ আম্বানী দরজা খোলে আর সে তাকে চিনতে পেরে যায় ।আর তাঁর পর তাদের সম্পর্ক এগিয়ে যেতে থাকে ।

কিছু দিনের মধ্যে মুকেশ আর নীতা ডেটে যেতে থাকে ।আর তাদের পর বিয়ের প্রস্তাব রাখা হয় তাঁর কাছে আর নীতা বলে সে বিয়ে করতে পারবে যদি তাঁর শর্ত মানা হয় ।আর তাঁর শর্ত ছিল বিয়ের পর সে নিজের মত থাকবে ।

একজন সাধারন মানুষের মত আর সে কাজ করবে মানে চাকুরি করবে ।আসলে নীতা আম্বানী ৮০০ টকা বেতনে একটি স্কুলে বাচ্চা দের পড়াত ।আর বাচ্চাদের পড়াতে তাঁর খুব সখ ছিল তাই সে এরকম শর্ত রেখেছিল আর তাতে মুকেশ আম্বানী রাজি হয়ে যায় ।আর এই সম্পর্ক আগে এগিয়ে যেতে থাকে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button