দুই সন্তানের পিতা সাইফ কে বিয়ে করিনার পক্ষে করা খুব একটা সহজ ছিলো না, কিন্তু এই কারণে করিনার বিয়ে করতে হয়েছিলো

সাইফ আলি খান এবং কারিনা কাপুর বলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় জুটি তারকা। তারা দুজনেই এখন সুখী জীবনযাপন করছেন, তাদের সন্তান তৈমুর আলী খানও এখন বর্তমানে এক নম্বর স্টার কিড। আপনার তথ্যের জন্য বলে রাখি যে কারিনা-সাইফের থেকে 10 বছরের ছোট কিন্তু এটি তাদের মধ্যে কোন পার্থক্য তৈরী করে না। তারা একে অপরকে খুবই ভালোবাসে।

কারিনার এটা প্রথম বিবাহ হলেও সাইফ আলী খানের এটি দ্বিতীয় বিবাহ। এর আগে তিনি অমৃতা সিংয়ের সঙ্গে বিয়ে করেছিলেন এবং তাদের ডিভোর্স হয়ে যায়, এমন পরিস্থিতিতে অনেকেই চাননি কারিনা একজন ডিভোর্স প্রাপ্ত পুরুষকে বিয়ে করুক। কারান জোহরের ‘কফি উইথ করণ’-এ কারিনা নিজেই এটি প্রকাশ করেছিলেন এবং এই শোতে অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার সঙ্গে এসেছিলেন কারিনা কাপুর। কারিনা বলেছেন, তিনি যখন সাইফকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তখন অনেকেই তাকে আবার ভাবতে বলেছিল।

শোতে সেখানে করন কারিনাকে নিজের ব্যক্তিগত জীবন সম্পর্কিত অনেক কিছু জিজ্ঞেস করেছিলেন এবং এসবের উত্তরে বলেছিলেন যে, আমি যখন সাইফকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম, তখন অনেকেই আমাকে বলেছিল যে, সাইফ এর ইতিমধ্যে দুটি সন্তান রয়েছে। সে তালাকপ্রাপ্ত আপনি কি সত্যিই তাকে বিয়ে করতে চান?

কেউ কেউ এমন বলেছে, বিয়ে করলে তার ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যাবে। তারপর সবার কথা শুনে যেন মনে হলো, প্রেম করাটাই অ_প_রা_ধ নাকি বিয়ে করাটা অ_প_রা_ধ! তারপর ভাবলাম করেই দেখি না যা হয় হবে।

তিনি এমন অভিনেত্রীদের তালিকায় এখন রয়েছেন যাদের বিয়ের পরেও ক্যারিয়ার নষ্ট হয়নি। তিনি বর্তমানে তার পরিবারের সাথে সময় কাটাচ্ছেন। তবে সাইফ কারিনার জুটি আপনাদের কেমন লেগেছে কমেন্টে অবশ্যই জানাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button