কেঁদে কেঁদে ছেলের জন্য জেলের কয়েদিদের কাছে একটা, যে অনুরোধ করেছিলেন শাহরুখ খান

অবশেষে বাবা-ছেলের দেখা হল, হতেই হল, তবু এমন এক পরিস্থিতি, যা দুজনেরই বিপক্ষে। আমরা জানি ২রা অক্টোবর গোয়াগামী প্রমোদতরীতে শাহরুখপুত্র আরিয়ান সহ আরও ৮ জনকে আটক করা হয়।আর ওই কর্ডেলিয়াতে যাত্রী হয়ে যাত্রা করছিলেন এনসিবির গোয়েন্দারা। তাঁরা মাদক কাণ্ডে জড়িত বলে জানায় এনসিবি।

এনসিবি সেদিন আরিয়ান খানকে টানা ১৬ ঘণ্টা জেরা করার পর নিজেদের হেফাজতে নেন। সেই ৩রা অক্টোবর এর পর থেকে আজ ২২শে অক্টোবরে ছেলের সাথে দেখা করতে এলেন শাহরুখ খান। বৃহস্পতিবার সকাল ৯’টায় মুম্বাইয়ের আর্থার রোডের জেলেতে ছেলেকে দেখতে গিয়েছিলেন। তবে বাবা ছেলে সামনাসামনি হতেই সেই আবেগঘন মুহূর্ত, একে অপরের প্রতি দুঃখ প্রকাশ।

ছেলেকে জেল হেফাজত থেকে জামিনের ব্যবস্থা করতে না পারায় বাবা হিসেবে শাহরুখ খান ছেলের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তবে বাবা-ছেলের বিশদে কি কথা হয়েছে সে সম্পর্কে ভারতীয় কয়েকটি সংবাদমাধ্যম তা প্রকাশও করেছেন। আরিয়ান তাঁর বাবাকে দেখে জানান, তিনি যথেষ্ট দুঃখিত, প্রত্যুত্তরে শাহরুখ খানও ছেলেকে জানান যে, তিনি তাঁকে বিশ্বাস করেন এবং তিনিও দুঃখিত।

এর পরে অবশ্য ছেলে খেয়েছেন কিনা সে সম্পর্কে জানতে চান তিনি। ছেলে খাইনি জেনে তিনি ছেলেকে কিছু খাওয়াতে পারবেন কিনা সে বিষয়ে জেলার এর অনুমতি চাইলে, তাঁকে জানানো হয় যে, আদালতের অনুমতি ছাড়া তা সম্ভব নয়। তবে সর্বশেষ যেটা জেনে খুবই দুঃখিত হতে হয় যে, জেলের অন্যান্য কয়েদিদের কাছে ছেলেকে দেখাশোনা করার জন্য অনুনয় বিনয় করে জান শাহরুখ খান।

তবে তিনি একজন সুপারস্টার হওয়া সত্বেও কোন বাড়তি সুবিধা পান নি। ছেলে আরিয়ান বাবাকে দেখে চোখের জলে বাঁধ মানে নি, তবে মুম্বাই সেশন কোর্ট তার জামিন খারিজ করে দিলেও তাঁর আইনজীবী আবার মুম্বাই হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করেছেন। আগামী ২৬ শে অক্টোবর শুনানি দিন ঠিক হয়েছে, এখন সে দিকেই নজর থাকবে সকলের। এই ২৩ বছরের তরুণ এর পক্ষে সতীশ মানসিন্ডে ও অমিত দেশাই যারা মুম্বাইয়ের অন্যতম শীর্ষ আইনজীবী বলে খ্যাত, তাঁরা যথেষ্টই লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন।এখন এবার সমস্তটাই সময়ের অপেক্ষা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button