কুর্নিশ, অসামাজিক কাজ কর্মের বিরুদ্ধে যে ভাবে রুখে দাড়িয়ে সেই স্থানে ৩ বছরের মধ্যে স্কুল চালু করলেন এই দাপুটে সাহসী শিক্ষিকা!

জয়পুরের মনোহরপুর কাচি বস্তিতে নির্মিত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চেহারা পাল্টে গেছে বর্তমানে। এক সময় এটি অসামাজিক কর্মকাণ্ডের কেন্দ্রস্থল হয়ে উঠেছিল। এত কিছু সত্ত্বেও সেখানকার পরিস্থিতি এখন পাল্টেছে। এত বড় পরিবর্তন যার জন্য সম্ভব হয়েছে এই পুরো কৃতিত্ব তারই প্রাপ্য। তিনি তিন বছরে এই স্কুলের পরিবেশ পাল্টে দিয়েছেন। তার নাম মনীষা সিং।

মনীষা স্কুল কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলেন এবং শিশুদের শিক্ষার উন্নতি ঘটানোর জন্য কাজ করা শুরু করেন। এরপর সে জনসাধারণের কাছ থেকে সহযোগিতা চায় যাতে বিদ্যালয়ের পরিবেশ সুন্দর হয় এবং সেখানে শেখার পরিবেশ তৈরি হয়। মাত্র তিন বছরের মধ্যে মনীষা এই বিদ্যালয়টিকে নতুন রূপে সাজিয়ে তুলেছেন এবং তিনি নিজেও স্কুলে শিক্ষকতা করেন।

সে স্কুলে সরকারের সহযোগিতায় সীমানাপ্রাচীর দিয়েছেন, পাশাপাশি এর ঘর নির্মাণের কাজে সহায়তা করছে তার এলাকাবাসীরা। লায়ন্স ক্লাবের সহায়তায় সেখানে পাঠরত শিক্ষার্থীদের জন্য দুটি ভবন এবং একটি পৃথক টয়লেট নির্মাণ করা হয়েছে। স্কুলের দেওয়ালে বিভিন্ন শিক্ষণীয় বস্তুর আঁকার কাজ চলছে।

মনীষা এখানে মেয়েদের আত্মরক্ষার জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন এবং পরীক্ষায় ভালো নম্বর পাওয়া ছাত্র-ছাত্রীদের পুরস্কার দেওয়া শুরু করেছেন, যাতে তাদের দেখাদেখি বাকিরাও পড়াশোনার প্রতি উৎসাহিত হয়। এছাড়াও তিনি স্বাস্থ্য শিবির এর আয়োজন করেছেন। শিশুদের জন্য স্টেশনারি পোশাক এবং স্কুল ব্যাগ এর ব্যবস্থা করা হয়েছে। মনীষার মতন মেয়েরা শিক্ষকতা দুনিয়ায় এক অনুপ্রেরণা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button