এক সময় ভারতের ব্লাইন্ড ক্রিকেট দলকে ওয়ার্ল্ড কাপ জিতিয়েছেন, আজ পেটের দায়ে অভাবে ইট বহন করছেন

আমাদের দেশে ক্রীড়াবিদরা যখন ভারতবর্ষকে বিশ্বের সামনে গর্বিত করে, তখন আমরা তাকে নিয়ে ভীষণভাবে গর্বিত বোধ করি কিন্তু ঠিক তার পরেই তাদের কিভাবে জীবন অতিবাহিত হচ্ছে অথবা তারা কিভাবে ভবিষ্যতের পরিকল্পনা করছেন তা নিয়ে কিন্তু মাথা ঘামাই না আমরা। এমনই একজন বিশ্বচ্যাম্পিয়ান ছিলেন দৃষ্টিহীন ক্রিকেটার নরেশ তুমদার।

সম্প্রতি এই খেলোয়াড়ের কথা সামনে আশায় সকলেই অবাক হয়ে গেছেন। ব্লাইন্ড ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপকে বিশ্বের সামনে জয় করেছিলেন তিনি। দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত ফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি পাকিস্তানকে হারিয়ে দুরন্ত পারফর্ম করেছিলেন তিনি। অথচ তিন-তিনবার গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানিয়েও কোন আর্থিক সাহায্য জোটেনি তার। অবশেষে জীবন অতিবাহিত করার জন্য দিনমজুর হিসেবে কাজ করতে শুরু করেছেন তিনি।

সংবাদ সংস্থা এএনআই এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বর্তমান পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিন ধরে আর্থিক সংকটে ভুগছিলেন তিনি। মহামারীর সময় আর্থিক অনটনের মধ্যে থাকায় বাজারে সবজি বিক্রি করেছেন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাওয়ার ফলে সেই ব্যবসা লাটে উঠেছে। বর্তমানে দিনমজুর হিসেবে কাজ করছেন এই ক্রিকেটার।

আর্থিক সাহায্য প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মুখ্যমন্ত্রীর কাছে ৩ বার চাকরির জন্য আবেদন করেছিলাম কিন্তু কোনো রকম সাড়া পাইনি আমি। আমি আজও সরকারের কাছে একটাই আবেদন জানাবো, আমাকে একটি চাকরি দেওয়া হোক যাতে আমি পরিবারের খেয়াল রাখতে পারি। আমার বাবা মা বৃদ্ধ। বাবা কাজ করতে পারেন না। পরিবারের একমাত্র সম্বল আমি। গতবছর জামালপুর বাজারে আমি সবজি বিক্রি করতাম কিন্তু তাতে বেশি রোজগার পাওয়া যেত না। অবশেষে দিনমজুরের কাজ বেছে নিয়েছি আমি।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ঐতিহাসিক জয়ের পর ভারতীয় দল রীতিমতো ইতিহাস তৈরি করেছিল। রাষ্ট্রপতি থেকে প্রধানমন্ত্রীর সকলেই ক্রিকেটারদের প্রশংসা করেছিলেন। রাষ্ট্রপতি থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর আর সকলের কথা দিয়েছিলেন ক্রিকেটারদের পাশে দাঁড়ানোর। কিন্তু সেগুলি যে কথার কথা, সেটা আরো একবার প্রমাণ হয়ে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button