একই পরিবারে ছ’জন মেয়ে ডাক্তার, তার মধ্যে চারজনের স্বামীও ডাক্তার, আসুন জেনে নিই বিস্তারিত

কেরালার একটি পরিবার আছে। আহমেদ কুনহাম এবং তার স্ত্রী জাইনা আহমেদ সেখানে থাকেন। জাইনার 6টি মেয়ে রয়েছে। আহমেদ একজন প্রগতিশীল ব্যক্তি। তিনি মেয়েদের ভালো শিক্ষা দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন যাতে তারা সমাজের সেবা করতে পারে এবং অন্যদের জন্য অনুপ্রেরণা হতে পারে।

‘দ্য নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’ এর প্রতিবেদন অনুসারে, এটি তার মেয়েদের প্রভাবিত করেছিল এবং তার ছ’টি মেয়ে, তারা সবাই পড়াশোনায় ভালো ছিলো এবং তারা সবাই ডাক্তার হতে চেয়েছিল। প্রত্যেকের স্বপ্নই বাস্তবায়িত হয়েছে। তার বড় মেয়ে ফাতিমা আহমেদ তারপরে হাজরা আহমেদ, আয়েশা আহমেদ এবং ফাইজ আহমেদ ডাক্তার হিসেবে প্র্যাকটিস শুরু করেছেন।

রিহান আহমেদ চেন্নাইয়ের এম.বি.বি.এস এর শেষ বর্ষ এ এবং সর্বকনিষ্ঠ আমিরা আহমেদ ম্যাঙ্গালোরের এম.বি.বি.এস এর প্রথম বর্ষে পাঠরত। বিশেষ বিষয় হলো তার চার মেয়ের স্বামীরাও ডাক্তার। আহমেদকে বিয়ে করার সময় তার স্ত্রীর বয়স ছিল মাত্র 12 বছর। আহমেদ তখন চেন্নাইতে ব্যবসা করছিল এবং তখন তাদের প্রথম কন্যা সন্তান জন্মের পর তারা কাতারে চলে যান এবং শোধনাগারে কাজ শুরু করেন।

কাতারে 35 বছর কাজ করার পর এই দম্পতি কেরালায় ফিরে আসেন। দুই বছর আগে আহমেদ বুকে ব্যথা অনুভব করেন এবং মারা যায়। তখন তার দুই মেয়ের বিয়ে হয়েছে তারপর থেকে জাইনা তার মেয়েদের দেখাশোনা করেন। এরকম বাবা-মায়েরা এবং এরকম সন্তানেরা পুরো সমাজের জন্য একটি অনুপ্রেরণা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button