” মানিকে মাগে হিতে” গান গেয়ে ট্রোলের শিকার হিরো আলম পাল্টা জবাব দিলো নেটিজনেদের

আর একবার ভাইরাল হলো হিরো আলমের গান। তবে এবার নিজের গান নয়, বিখ্যাত গান মানিগো মাগে হিতে গানের আদলে গেয়ে ফেললেন একটা আস্ত গান। হিরো আলম যেখানে থাকবে সেই ভিডিও ভাইরাল না হয় যায় কোথায়। তাই মুহূর্তের মধ্যে ভিডিওটি সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হয়ে গেল। এপার ওপার দুই বাংলার মানুষ দেখে ফেলল এই ভিডিও। শ্রীলংকার গায়িকার মত বাংলাদেশের গায়ক গেয়ে ফেলল আস্ত একটি গান। তবে শ্রীলংকার গায়িকার গানের মানে না বুঝতে পারলেও হিরো আলমের গানের মানে কিন্তু বেশ বুঝতে পারবেন আপনি। আর শুধু বুঝতে পারবেন তাই কিন্তু নয়, শুনে প্রাণ খুলে হাসবেন।

গানের মধ্যে লুকিয়ে রয়েছে বাস্তব জীবনের বেশ কিছু অংশ। বাজারের উচ্চ দাম এবং মধ্যবিত্ত মানুষের টানাপোড়েনের কথা হিরো আলমের গানের কথায় কথায় ভেসে উঠেছে। যদিও এই গানটি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া তোলপাড় হয়ে গেছে ইতিমধ্যেই। শুরু হয়ে গেছে মিম বানানো। সকলেই আরো একবার হিরো আলমের এই গানটি নিজের টাইমলাইনে শেয়ার করে ফেলেছেন।

বাংলাদেশের এই কমেডিয়ানকে নিয়ে যতই কমেডি করা হোক না কেন, এই কমেডিয়ানের মধ্যে যে একটি সুন্দর মানুষ লুকিয়ে রয়েছে তার হদিশ কিন্তু মানুষ পেয়ে গেছে গত বছর একটি ভিডিও থেকে। তবে যাই হোক, শ্রীলংকা হোক অথবা বাংলাদেশ, এই গানটি টিআরপি যে এখনই কমে যাবে না’ তা বলাই বাহুল্য।

তবে সম্প্রতি সমস্ত উপহাসের যোগ্য জবাব দিতে দেখা গেল হিরো আলম কে। তাঁর গানকে বেসুরো গলার পরিপ্রেক্ষিতে তিনি বলেন, আমি গান গাইলে এইরকম শোনায়। আমি যেভাবে গান গাই, হয়তো আপনারা এই ভাবে গান গেয়ে থাকেন। কিন্তু যেহেতু গানটি আমি গাইছি, তাই বাজারে তাকে নিয়ে হাসি ঠাট্টা হয়। আমার নিজস্ব জীবনবোধ আছে। আমি আপনাদের মত চিন্তা ভাবনা করি না।

জীবন কাটানোর আমার আলাদা প্রক্রিয়া রয়েছে যা একান্তই ব্যক্তিগত। আমি যা করি নিজের মনের মত করি তাতে যদি সংস্কৃতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যায় তাহলে এমন সংস্কৃতি থাকা দরকার নেই। তিনি আরো বলেছেন, চাইলে আপনিও গান গাইতে পারেন। রেকর্ড করে সেগুলি বাজারে ছেড়ে দিতে পারেন। সবারই গান গাওয়ার আলাদা অধিকার থাকে। সেটা সুন্দর হোক অথবা অসুন্দর।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button