এক মহিলা রতন টাটাকে ছোটু বলে ডাকায় প্রত্যুত্তরে রতন টাটা যা বললেন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল

রতন টাটা, নামটা শুনলেই শ্রদ্ধায় মাথা নত হয়ে যায়। সবথেকে বড় শিল্পপতিদের মধ্যে অন্যতম হলেন তিনি। কিন্তু তার কর্মকাণ্ডের জন্য আজ তাকে সম্মান করেন বহু মানুষ। অর্থ থাকলেই শুধু হয় না, তার জন্য দরকার মানসিকতা। রতন টাটা তার জীবনে পরিশ্রম করে যে অর্থ উপার্জন করেছেন, তার সবটাই যে শুধুমাত্র নিজের জন্য নয়, নিজের দেশ এবং দেশবাসীকে জন্য, সেটা বারবার তিনি প্রমাণ করে দিয়েছেন।

এই প্রবীণ ব্যবসায়ী কঠিন পরিস্থিতিতে বহুবার সাহায্য করেছেন তার নিজের দেশকে। নিজের দেশের মানুষদের বিপদে পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছেন। টাটা কোম্পানিতে যে সমস্ত কর্মীরা কাজ করেন, শুধুমাত্র তাদের নয়, তাদের পরিবারের খেয়াল রাখতে চেষ্টা করেন তিনি। তাই হয়তো অর্থের পাশাপাশি সম্মানের দিক থেকে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছেন রতন টাটা।

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে এই ব্যক্তিত্ব মাঝে মাঝে সাধারণ মানুষের কাছাকাছি যাওয়ার চেষ্টা করেন। অনেক সময় জনসাধারণের প্রশ্নের উত্তর দেবার চেষ্টা করেন তিনি। তবে এবার এই সোশ্যাল মিডিয়াতে রতন টাকাকে এক মহিলা ডাকলেন ছোট্টু নামে। উত্তরে রতন টাটা কি বললেন চলুন জেনে নেওয়া যাক।

সম্প্রতি রতন টাটা একটি পোস্ট করেন যেখানে তিনি টাটা গোষ্ঠীর একটি কৃতিত্বের কথা তুলে ধরেছেন সকলের সামনে। এই পোস্টে অনেকেই রতন টাটা কে সম্মান জানিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। কিন্তু নেটিজেনদের মধ্যে জনৈক মহিলা লেখেন, কংগ্রাচুলেশন ছোট্ট। অর্থাৎ শুভেচ্ছা ছোটু। তেমন ভাবেই তিনি রতন টাটা কে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, বোঝা যাচ্ছে রতন টাটার মত একজন বিখ্যাত ব্যক্তি কে তিনি খুব ভালোভাবেই চেনেন।

মহিলার এইরকম কমেন্টে অনেকে অবাক হয়ে গেলেও এই কমেন্টের উত্তর দিয়েছেন রতন টাটা নিজেই। রতন টাটা কমেন্টের উত্তরে যা লিখেছেন তা দেখে রীতিমত অবাক হয়ে গেছে সকলে। রতন টাটা যে একজন প্রকৃত ভদ্রলোক, সেটা আরো একবার প্রমাণিত হয়ে গেল তার উত্তর দেখে। মেয়েটির প্রশ্নের উত্তরে রতন টাটা লেখেন, প্রত্যেকটি মানুষের মধ্যে একটি বাচ্চা রয়েছে। ধন্যবাদ আমাকে এই নামে ডাকার জন্য।

এই কথার অর্থ হল, তাকে ছোট বলে ডাকার জন্য তিনি মোটেই খারাপ মনে করেন নি। তিনি একটি বাস্তব কথা তুলে ধরেছেন সকলের সামনে। প্রত্যেক মানুষের মধ্যেই একটি বাচ্চা লুকিয়ে থাকে। এই লুকিয়ে থাকা শিশুটিকে প্রত্যেক মানুষ সযত্নে লুকিয়ে রাখে নিজের মধ্যে। পাশাপাশি তিনি এও লিখেছেন, এই মেয়েটির সাথে সবাই দয়া করে ভালোভাবে ব্যবহার করবেন।

কিন্তু হঠাৎ করে অজানা একটি মেয়ের স্বপক্ষে কেন কথা বললেন রতন টাটা? আসলে ইন্টারনেটের একটি খুব খারাপ দিক হলো ট্রলিং করা অর্থাৎ সকলকে উপহাস করা। অনেকেই এই উপহার কে নোংরামোর জায়গায় নিয়ে যায়। মেয়েটি রতন টাটার মত একজন ব্যক্তিত্ব কে ছোটু বলে ডাকার পর অনেকেই হয়তো তাকে নিয়ে নানারকম কটুক্তি করবেন। তাই আগে থেকেই রতন টাটা সকলকে অনুরোধ করেছেন, দয়া করে মেয়েটিকে খারাপ মন্তব্য করে তাকে কষ্ট দেবেন না। এমন একটি কথা শুনে আরও একবার প্রমাণিত হয়ে গেল, রতন টাটার মতো ব্যক্তিত্ব সত্যি খুব কম দেখা যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button