সোনাম , দীপিকার পর ক্যাটরিনাকেউ সাজিয়েছিলেন তিনি, কলকাতার এই কন্যাকে বলিউড সেলেবরা কেনো পছন্দ করেন রইলো তার আসল কারণ

ভিকি ক্যাটের বিয়ের অনুষ্ঠানের নানান খুঁটিনাটি তথ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় উঠে আসতে শুরু করেছে, তেমনি একটি চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে এসেছে, যা শুনলে একাধারে যেমন নিজেদের বাঙালি হিসেবে গর্ববোধ হয়, অন্যদিকে আশ্চর্যও হতে হয়।যেখানে ভিকি কৌশল ও ক্যাটরিনা কাইফের বিয়েতে ছিল কঠোর নজরদারি, যেখানে কাকপক্ষীও ঢুঁ মারতে পারেনি সেখানে ঢুঁ মেরেছেন ডলি জৈন । কিন্তু কে এই ডলি জৈন? তিনি হলেন কলকাতার কন্যা, এ ছাড়াও তাঁর আরেকটি পরিচয় আছে, তিনি হলেন একাধারে ডিজাইনার ও ড্রেপ আর্টিস্টও। যিনি দীপিকা পাডুকোন, সোনাম কাপুর, এমনকি প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার মতো হাইপ্রোফাইল নায়িকাদের বিয়েতে, কনেকে শাড়ি পরানোর দায়িত্বে ছিলেন ডলি।

এবার সেই স্বনামধন্য ডিজাইনারের দায়িত্ব পড়েছিল ক্যাটরিনাকে সাজাবার। যা তিনি যথেষ্ট নিখুঁতভাবেই সম্পন্ন করেছেন, যদিও দলের বক্তব্যে জানা গেছে তিনি যথেষ্ট চাপে ছিলেন কারণ ক্যাটরিনা কতটা তার সাথে তালে তাল মেলাবেন, তাদের তাল কেটে নেয়া যায়, কিন্তু অবশেষে তা কিছুই হয়নি। উল্টে ক্যাটরিনার বক্তব্যে ধরা পড়েছে তাঁর প্রশংসা ছবি। কারণ এটা নিজেই স্বীকার করেছেন তাঁকে এর আগে বিভিন্ন সিনেমায় শাড়ি পরতে হয়েছে এবং সেই শাড়ি পরাতে তাঁদের সময় লেগেছে ৩০ থেকে ৩৫ মিনিট কিন্তু এক্ষেত্রে সময় লেগেছে মাত্র ১০ মিনিট।

ক্যাটরিনাও শাড়ি পড়তে যথেষ্টই পছন্দ করেন বলেই হয়তো এটি সম্ভব হয়েছে এবং শাড়ি পরে তিনি বেশ ফ্লেক্সাইবেল, কোনো রকম কোনো অসুবিধা হয়নি। তার ওপরে ডিজাইনার সব্যসাচী মুখোপাধ্যায়ের ডিজাইন করা শাড়িতে অপরূপ সুন্দরী লাগছিল ক্যাটরিনাকে। শাড়িটি তৈরি করেছেন ৪০ জন বাঙালি মিলে ১৮০০ ঘন্টা পরিশ্রম করে তৈরি করেছেন এই বিশেষ শাড়িটি। ফুল ছাপা এমব্রয়েরড মসলিন শাড়িটি ইতিমধ্যেই সবার মনোগ্রাহী হয়েছে। ক্যাটরিনাকে এই শাড়িটা দেখে শুধুমাত্র ভিকই নন বরং সমস্ত পুরুষদের মনেই হিন্দোল উঠেছে এবং এই নিয়েই আপাতত সোশ্যাল মিডিয়া যথেষ্ট সরগরম।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button